Sunday, 22 June 2014

ট্রাইব্যুনালে নতুন কেলেঙ্কারী

ঢাকা: ট্রাইব্যুনালে প্রসিকিউটরদের মধ্যকার পারস্পরিক দ্বন্দ্ব-কলহ এখনো চলমান। ঠিক সেই মুহূর্তে নতুন বিতর্কের জন্ম নিল। সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার মাঝেও রাষ্ট্রপক্ষের অন্যতম কৌশলী ব্যারিস্টার ড. তুরিন আফরোজের নিজস্ব কম্পিউটার থেকে মানবতাবিরোধী মামলার বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত খোয়া গেছে বলে প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে।
এমনকি এ বিষয়ে শাহবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করা হয়েছে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে রুমটি সাময়িক সময়ের জন্য সিলগালা করে দেন।

রোববার দীর্ঘ ১০ দিনের ছুটি শেষে ট্রাইব্যুনালে যোগদানের পর দুপুরে নিজ কক্ষে অবস্থানকালে এ বিষয়টি প্রথম তুরিন আফরোজের নজরে আসে।


ঘটনার সত্যতার বিষয়ে ড. তুরিন আফরোজ বাংলামেইলকে বলেন, ‘ছুটি শেষে কাজে যোগ দিতে দুপুরে ট্রাইব্যুনালের নিজস্ব কক্ষে প্রবেশ করি। উদ্দেশ্য ছিল এটিএম আজহারের বিরুদ্ধে দুটি সাবমিশন তৈরি করবো। কিন্তু সিটে বসতে গিয়ে টেবিলের সবকিছু ওলট-পালট অবস্থায় দেখতে পাই। দেখি কম্পিউটারের লাইন জানালার বাইরে ঝোলানো। কম্পিউটারের সিপিইউ থেকে মনিটরের সংযোগ বিচ্ছিন্ন। পরে একজন সহকারীকে দিয়ে কম্পিউটার খুলে এর মধ্যে থাকা র‌্যাম, হার্ডডিস্ক বিচ্ছিন্ন অবস্থায় দেখতে পাই।’

তুরিন আফরোজ আরো বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে সন্দেহ করছি এর মধ্যে থেকে হয়তোবা কোনো তথ্য সরানো হতে পারে। তাই শাহবাগ থানায় একটি জিডি করে রেখেছি। পুলিশ আইটি বিশেষজ্ঞদের দিয়ে আগামীকাল সোমবার বিষয়টি খতিয়ে দেখবে।’

উল্লেখ্য, বেশকিছু দিন ধরে ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের মধ্যে পরস্পর বিরোধ চলে আসছে। এছাড়াও বিদেশি আইনজীবীদের সঙ্গে স্কাইপ কথোপকথোন ফাঁস ও সালাউদ্দিন চৌধুরীর রায়ের কপি ফাঁস নিয়ে ট্রাইব্যুনাল ইতোমধ্যে বিতর্কের জন্ম দিয়েছে।

এছাড়াও ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপু চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে থাকায় ভারপ্রাপ্ত চিফ প্রসিকিউটরের দায়িত্ব পান প্রসিকিউটর হায়দার আলী। তবে গত কয়েকদিন ধরে তিনিও চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে অবস্থান করছেন।
http://www.banglamail24.com/index.php?ref=ZGV0YWlscy0yMDE0XzA2XzIyLTc1LTk3MDc0